1. editor@mvoice24.com : Mahram Hossain : Mahram Hossain
  2. admin@mvoice24.com : admin :
মৃতপ্রায় অসহায় রোগীর স্বপ্ন বাস্তবায়নে মানবিক পুলিশ জহির - MVOICE 24
শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৮:৩২ পূর্বাহ্ন

মৃতপ্রায় অসহায় রোগীর স্বপ্ন বাস্তবায়নে মানবিক পুলিশ জহির

ডেক্স নিউজ
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২২ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৭৯১ বার পড়া হয়েছে

।।মুহাম্মদ মহরম হোসাইন।।

পুলিশের নাম শুনলে অনেকেই আঁতকে ওঠেন না জানি তারা কত খারাপ। না জানি তারা কতই নির্দয়। অনেকে আবার বলেন বাঘে ছুঁলে বার ঘা পুলিশ ছুঁলে আঠারো ঘা। অনেকে আবার ভয়ে থানার সামনে দিয়ে পা ও মাড়ান না। পুলিশের বিরুদ্ধে এসব রটনা এবং অভিযোগ ভুরি ভুরি। তবে এর কতটুকু সত্য? পুলিশ কোন ভিন্ন গ্রহের মানুষ নয়, তারা আপনার আমার সন্তান, আমাদের পরিবারের সদস্য, ভাই বোন। তারাও রক্তে মাংসে গড়া মানুষ, তাদেরও হৃদয় আছে। তেমনি একটি মহৎ হৃদয়ের কাছে হার মানল মৃত্যু। জয় করে আনলেন অর্ধমৃত এক ব্যক্তিকে। যার পুরোটাই অবদান একজন পুলিশের গর্বিত সদস্য জহিরুল ইসলাম ভূঁইয়ার।

 

জহিরুল ইসলাম ভূঁইয়া দীর্ঘদিন ধরে দায়িত্ব পালন করছেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ হিসেবে।

গত ১৬ই ডিসেম্বর ২০২০ ইং হাসপাতালে এলাকায় দায়িত্ব পালনকালে ইমারজেন্সি গেটে পুলিশ পরিদর্শক জহিরুল ইসলাম দেখেন সীতাকুণ্ড উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ট্রেনে কাটা একজন নাম পরিচয়হীন মুমূর্ষু রোগীকে চট্টগ্রাম মেডিকেলের জরুরি বিভাগে ফেলে রেখে চলে যান উক্ত স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ড্রাইভার। রোগীটির একটি পা শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন ছিল এবং অপর পাও গুরুতর জখম ছিল।

পরিচয় বিহীন রোগীটির চিকিৎসা যখন অনিশ্চিত তখন সেখানে তার চিকিৎসার সুব্যবস্থা গ্রহণ করার দায়িত্ব নেন চট্টগ্রাম মেডিকেল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর জহিরুল ইসলাম।

রোগীকে অর্থোসার্জারী (২৬নং) ওয়ার্ডে ভর্তি দিলে পুলিশ ক্যাম্পের কয়েকজন পুলিশ সদস্য ইন্সপেক্টর জহিরুল হকের নেতৃত্বে রোগীকে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডে পৌঁছে দেন। রোগীর শারিরীক অবস্থার অবনতি দেখে মো ফয়সাল নামে কর্তব্যরত ডিউটি ডাক্তার জানান রোগীকে বাঁচাতে হলে জরুরী ভিত্তিতে ৪ ব্যাগ রক্ত প্রয়োজন। তাৎক্ষণিক রোগীর জন্য ৪ ব্যাগ রক্তের ব্যবস্থা করেন পুলিশ ইন্সপেক্টর জহিরুল হক ভূঁইয়া। পাশাপাশি তিনি রোগীর পরিচয় খোঁজার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যাটাস দেন। ফেসবুকের কল্যাণে রোগীর অাত্মীয়দের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়।
জানা যায় রোগীর নাম মোঃ ফোরকান (৪২), বাড়ি হাটহাজারী, পেশায় সে একজন দিনমজুর।

পরবর্তীতে তার পায়ের অপারেশন করে দুটি পা কর্তন করতে হয় এর জন্য প্রয়োজন হয় আরো প্রায় ১৩ ব্যাগ রক্ত এবং প্রয়োজনীয় ঔষধ সহ রোগীর পথ্য সামগ্রীর এসবকিছুর যোগান দেন ইন্সপেক্টর জহিরুল হক। প্রায় তিন মাস চিকিৎসা শেষে এখন সে সুস্থ হওয়ার পথে। এখন দুটি পা হারানো ফোরকানের মনের আকাঙ্ক্ষা সে যেন একটু চলাফেরা করতে পারে। আর তাই তার স্বপ্নকে বাস্তব করতে চট্টগ্রাম মেডিকেল পুলিশ ক্যাম্পের পক্ষে তাকে একটি হুইল চেয়ার উপহার দেন ইন্সপেক্টর জহিরুল হক।

হুইল চেয়ার পেয়ে বেশ আনন্দিত ফোরকান। একজন পুলিশ অফিসারের মহানুভবতায় সে আজ সুস্থ। চট্টগ্রাম মেডিকেলে নিজের কর্তব্য কাজের পাশাপাশি প্রতিনিয়ত এধরনের মানবিক কাজে করে থাকেন ইন্সপেক্টর জহিরুল হক ভূঁইয়া। এ যেন পুলিশের একটি মানবিক দিক। মানবতার অভিন্ন সারথি পুলিশ জহির।

আআম/৭

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরো ......
Design Customized By Our Team